Skip to main content

Posts

Showing posts from 2022

আমার আব্বা আম্মা ভোটার আইডি কাড নামে ভুল আছে এখন passport করতে কোনো সমস্যা পড়ব কিনা?

 আমার আব্বা আম্মা ভোটার আইডি কাড নামে ভুল আছে এখন passport করতে কোনো সমস্যা পড়ব কিনা?  হ্যা আপনি সমস্যায় পড়বেন। আপনার বাবা মায়ের আইডি কার্ডে এক নাম আর আপনার পাসপোর্ট এ বাবা মায়ের নামের বানান বা নাম ভিন্ন হলে backend verification পাস করতে পারবেন না।  তাহলে কিভাবে epassport করবেন?  এ সমস্যা কোনো দালাল ধরে বা দরবেশ ধরে সমাধান করতে পারবেন না। আপনাকে নির্বাচন অফিসে গিয়ে যথোপযুক্ত প্রমান দাখিল করে আপনার বাবা মায়ের আইডি কার্ড সংশোধন করতে হবে প্রথমে।  এরপর আপনি পাসপোর্ট আবেদন করবেন আপনি আর কোনো সমস্যায় পড়বেন না। যদি আপনার MRP পাসপোর্ট থেকে থাকে আর সেখানে যদি আপনার বাবা মায়ের নাম ঠিক থাকে, তাহলে আপনি আবার NID ঠিক না করেও MRP passport থেকে ইপাসপোর্টে  কনভার্ট হতে পারেন। একে Conversion to epassport বলে। 

What is Pending for backend verification? Pending for backend verification বলতে কি বুঝায়?

What is Pending for backend verification? Pending for backend verification বলতে কি বুঝায়? Backend verification বলতে পাসপোর্ট অফিসে আপনার পাসপোর্ট আবেদনের পর আপনার তথ্য মেলানোর জন্য যে অনুসন্ধান করা হয়, তাকে বুঝানো হয়।  অর্থাৎ আপনি ধরেন একটি পাসপোর্ট এর জন্য আবেদন করলেন। পাসপোর্ট এর সয়ংক্রিয় সিস্টেম আপনার বায়োমেট্রিক তথা আপনার আঙ্গুলের ছাপ, ছবি, চোখের আইরিশ ইত্যাদি সব কিছু মিলিয়ে দেখবে যে এগুলো কি পাসপোর্ট এর সার্ভারে আগে থেকে রয়েছে কিনা।  যদি ধরেন আপনি একটি পাসপোর্ট থাকা সত্ত্বেও নতুন আরেকটি পাসপোর্ট নাম বা যেকোনো তথ্য পরিবর্তন করে আবেদন করে থাকেন, তাহলে backend verification এ আপনার পাসপোর্ট টা manual review এর জন্য পরে থাকবে। মেনুয়ালি চেক করে যদি আপনার তথ্যের কোনো গড়মিল না পাওয়া যায়, তাহলে আপনার পাসপোর্ট টি ছেড়ে দেয়া হবে এবং আপনি পরবর্তি ধাপ গুলো পাড় করে পাসপোর্ট টি হাতে পাবেন।  সয়ংক্রিয় ভাবে বেশিরভাগ বেকেন্ড ভেরিফিকেশন ছাড় পেয়ে যায়। কিন্তু যারা তথ্যের গোজামিল করেন, তারাই ধরা খেয়ে যান। অনেক ক্ষেত্রে ছোট খাটো পরিবর্তনেও বেকেন্ড ভেরিফিকেশনে আটকে যায় পাসপোর্ট। এগুলো backend verification

আমি একবার পাসপোর্ট করে তা হারিয়ে ফেলেছি। আবার নতুন পাসপোর্ট করতে পারব? অথবা কিভাবে পাসপোর্ট পেতে পারি?

আমি একবার পাসপোর্ট করে তা হারিয়ে ফেলেছি আবার নতুন পাসপোর্ট করতে পারব কি? অনেকেই এমন প্রশ্ন নিয়ে হাজির হয়ে থাকেন। গ্রুপে এবং পেইজে এমন অনেক প্রশ্ন পাওয়া যায় যে একজন ব্যক্তি একটি পাসপোর্ট করেছেন এরপর সেটি হারিয়ে ফেলেছেন। এখন কি তিনি ২য় বার পাসপোর্ট করতে পারবেন?  আসুন উত্তর জানা যাক।  পাসপোর্ট থাকা সত্ত্বেও নতুন পাসপোর্ট আবেদন করা যাবে কি? উত্তর হল না। আপনি একটি পাসপোর্ট করার পর আরেকটি পাসপোর্ট করতে পারবেন না। এটি আইনত দন্ডনীয় অপরাধ। আপনি যদি মনে করেন কেউ বুঝবে না, তাহলে আপনি সম্পূর্ণ ভুল ভাবছেন। পাসপোর্ট এর ডেটাবেজে আপনার আঙ্গুলের ছাপ সংরক্ষণ করা আছে। সেখান থেকে মিলিয়ে আপনাকে Backend verification এ পাসপোর্ট করা থেকে আটকিয়ে দেয়া হবে।  ফলে আপনি পাসপোর্ট আর পাবেন না। এরপর আপনাকে সারেন্ডার করতে হবে যে আপনি ভুল করেছেন। আপনি আপনার ভুল স্বীকার করলে তা যৌক্তিক বলে গ্রহণ হবে কিনা, এসব অনেক ঝামেলার বিষয়। সেদিকে অন্য একদিন যাবো।  আপাতত আজ যা বলছি, তার সব ই MRP passport বা epassport উভয়ের ক্ষেত্রেই একই। অর্থাৎ কোনো ব্যক্তিই এক এর অধিক MRP passport বা epassport করতে পারবেন না।  এবার আসা যাক আপনার পা

পাসপোর্টে স্পাউস অর্থাৎ স্বামী বা স্ত্রীর নাম দেওয়া না থাকে তাহলে কি করতে হবে?

যদি আপনার পাসপোর্টে স্পাউস অর্থাৎ স্বামী বা স্ত্রীর নাম দেওয়া না থাকে, তাহলে পরবর্তিতে পাসপোর্ট রিনিউ করা বা নতুন করে করার ক্ষেত্রে কি করবেন?  অনেকেই এমন প্রশ্ন করে থাকেন আমাদের আনঅফিশিয়াল ফেসবুক পেইজে।  আজকে এই প্রশ্নের উত্তর দিব।  তো আপনার যদি পাসপোর্ট থেকে থাকে যেখানে আপনার স্ত্রী বা স্বামীর নাম দেয়া নেই, অথবা আপনি যদি নতুন পাসপোর্ট করতে চান আপনার স্বামী বা স্ত্রীর নাম সংযুক্ত করে, তাহলে আপনাকে আপনার নিকাহনামা বা মেরিজ সার্টিফিকেট প্রদান করতে হবে।  নিকাহনামা বা মেরিজ সার্টিফিকেট সঙ্গে নিয়ে আসলেই নতুন পাসপোর্ট নেয়ার সময় অথবা পুরোনো পাসপোর্ট রিনিউ করার সময় আপনি আপনার স্বামী বা স্ত্রীর নাম পাসপোর্টে সংযোজন করতে পারবেন।  আরো পড়ুনঃ  কিভাবে পুলিশ রিপোর্ট ছাড়া e-passport পাওয়া যাবে?

কিভাবে পুলিশ রিপোর্ট ছাড়া e-passport পাওয়া যাবে?

 আপনি কি পুলিশ রিপোর্কি এর ঝামেলা এড়িয়ে সহজভাবে  e-passport করতে চান?  তাহলে এই লিখাটি আপনার জন্য।  পুলিশ রিপোর্ট ছাড়া e-passport পাওয়া যাবে? না পুলিশ রিপোর্ট ছাড়া ইপাসপোর্ট পাওয়া যায় না। প্রথমেই দুঃখ প্রকাশ করছি একটি ক্লিকবেট টাইটেল ব্যবহার করার কারণে। কিন্তু আবার এটি পুরোপুরি অসত্য ও নয়।  জী হ্যা আপনি পুলিশ রিপোর্ট ছাড়াও ই-পাসপোর্ট পেতে পারেন।  কিভাবে?  পুলিশ রিপোর্ট ছাড়া ইপাসপোর্ট পেতে হলে আপনাকে conversion to epassport করতে হবে। যদি আপনার কোনো তথ্য চেঞ্জ না হয়, আর আপনার পাসপোর্ট এর যথেষ্ট মেয়াদ থাকে, তাহলে আপনি কোনো ধরণের পুলিশ রিপোর্ট ছাড়াই আরো ১০ বছরের জন্য আপনার ইপাসপোর্ট পেয়ে যাবেন।  এজন্য আপনার পূর্বের পাসপোর্ট MRP থাকতে হবে। আগের পাসপোর্ট থাকলে সেটা থেকে ই-পাসপোর্ট এ কনভার্ট হবে আর কোনো তথ্য পরিবর্তন করবেন না।  ব্যাস হয়েই গেল। আপনি আপনার ইপাসপোর্ট পুলিশ তদন্ত ছাড়াই পেয়ে যাবেন। সর্বশেষ ৯ জুন ২০২২ এর তথ্য অনুযায়ী লিখা।  ধন্যবাদ।  শুধুমাত্র ৬৪ পৃষ্ঠার পাসপোর্ট আবেদনের নোটিশ

Conversion to Epassport কি? Do you have any previous passports? Yes?

 Conversion to Epassport হল আপনার MRP কে e-passport এ রুপান্তরিত করা। আপনার যদি একটি মেশিন রিডেবল পুরানো পাসপোর্ট থাকে, তাহলে আপনি সেটিকে e passport এ পরিবর্তন করতে পারবেন।  আপনি যখন পাসপোর্ট এর ওয়েবসাইট  থেকে আবেদন করবেন, আপনাকে জিজ্ঞেস করা হবে Do you have any previous passports?  Do you have any previous passports? জী এখানে আপনার যদি আগের পাসপোর্ট থাকে, অর্থাৎ epassport হাতে পাবার আগে কোনো পাসপোর্ট থাকে, তখন আপনি সেটার তথ্য দিবেন।  এরপর নতুন তথ্যে যদি পুরানো তথ্যের সাথে কোনো গরমিল না থাকে, তাহলে খুব সহজেই আপনি পাসপোর্ট টি পেয়ে যাবেন। এমন কি আপনার পুলিশ তদন্ত ও হবে না। আজ ৯ জুন ২০২২ পর্যন্ত এখনো সর্বশেষ এই নিয়ম ই বহাল রয়েছে।  এখন আপনার আগের পাসপোর্ট এর মেয়াদ থাকতেই নতুন করে ইপাসপোর্ট নেয়ার এই প্রসেস কে বলা হয় Conversion to Epassport । এটা খুব সহজ একটা উপায় জলদি ই-পাসপোর্ট বিনা ঝামেলায় পাবার জন্য।  ধন্যবাদ পড়ার জন্য। শেয়ার করতে ভুলবেন না। যত বেশি ভিউ হবে তত নতুন নতুন উত্তর দিব ইনশাআল্লাহ।  ৪ শব্দের নাম ই-পাসপোর্টে কিভাবে লিখবেন?   

Your new passport is ready for issuance at the passport office এই ইমেইল পেয়েছেন বলেই কি পাসপোর্ট পাবেন?

 সুপ্রিয় পাঠক বৃন্দ, আজকে একটি নতুন অভিজ্ঞতা শেয়ার করতে চলেছি। এইযে নিজের স্কিনশট টি দেখে নিন। এরপর চলুন বলা যাক ঘটনা।  Your new passport is ready for issuance at the passport office এই ইমেইল পেলে আপনি ভাবতেই পারেন পাসপোর্ট টি রেডি, আজকেই গেলে বুঝি আনতে পারবেন। বেশিরভাগ সময় যখন আমরা Conversion to Epassport করে থাকি, তখন যদি কোনো চেঞ্জ না আনি পাসপোর্ট এর তথ্যে, তাহলে খুব দ্রুত ই পাসপোর্ট প্রিন্ট হয়ে যায়। যদি আমি ভুল হয়ে না থাকি, তাহলে পাসপোর্ট প্রিন্ট হবার পর ই এই ইমেইল টি চলে আসে সবার কাছে। তাই সবাই ভুল করে বসেন এই ভেবে যে আজ ই গেলে বুঝি পাসপোর্ট পাওয়া যাবে।  ই-পাসপোর্টের পেমেন্ট সংক্রান্ত একটি সমস্যা ও তার সমাধান আসলে পাসপোর্ট টি প্রিন্ট হয় উত্তরা দিয়াবাড়ি পাসপোর্ট পার্সোনালাইজেশন কমপ্লেক্স এ। এখান থেকে পরবর্তীতে পোর্ট অফিসের মাধ্যমে এই পাসপোর্ট গুলি বিভিন্ন আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিসে (যাকে RPO বলা হয় সংক্ষেপে) পোস্ট অফিসের মাধ্যমে পাঠানো হয়ে থাকে।  তো ধরুন আপনার ডেলিভারি ডেট প্রায় আরো ১০ দিন পরে, কিন্তু আপনি ১০ দিন আগেই পাসপোর্ট রেডি হবার মেসেজ পেতেই পারেন।  এক্ষেত্রে আপনাকে যেদিন আপনার

শুধুমাত্র ৬৪ পৃষ্ঠার পাসপোর্ট আবেদনের নোটিশ

আগামী ২৯-০৫-২০২২ হতে ৩১-০৭-২০২২ পর্যন্ত শুধুমাত্র ৬৪ পৃষ্ঠার পাসপোর্ট আবেদন করতে পারবেন।  নিচের নোটিশ টি পড়ার জন্য অনুরোধ রইল।  তবে যারা ইতোমধ্যে ব্যাংকে টাকা জমা করেছেন ৪৮ পৃষ্ঠার পাসপোর্ট এর জন্য, তাদের কি হবে তা আমি অত্র পোস্টের লেখক জানতে পারি নি৷  মনে করিয়ে দিতে চাই, এটি আনঅফিসিয়াল পেজ এবং ওয়েবসাইট, সাধারণ মানুষের টুকটাক সাহায্য করার জন্য। ভুল-ভ্রান্তির জন্য ক্ষমা প্রার্থী৷ 

আমার এমআরপি পাসপোর্টে মাতা পিতার নাম আছে ইংরেজিতে, NID কার্ডে মাতা পিতার নাম আছে বাংলায় - এখন কোনটা দিয়ে ই-পাসপোর্ট করব?

  ফেসবুক  পেইজেএকজন প্রশ্ন করলেনঃ আমার এমআরপি পাসপোর্টে মাতা পিতার নাম আছে ইংরেজিতে, NID কার্ডে মাতা পিতার নাম আছে বাংলায় - এখন কোনটা দিয়ে ই-পাসপোর্ট করব? আপনার যদি MRP থেকে থাকে, তাহলে সেটা থেকেই আপনি EPP বা ই-পাসপোর্ট ইস্যু করে নিতে পারেন। একে বলা হয় conversion to ePassport. এটি সবচেয়ে সহজ পদ্ধতি ই-পাসপোর্ট পাওয়ার। অর্থাৎ আপনি MRP Passport এর কিছুই চেঞ্জ না করে নতুন একটা Epassport ১০ বছর মেয়াদে নিয়ে নিতে পারেন। অথবা ৫ বছর মেয়াদের ও নিতে পারেন।  আর আপনার MRP তে সব তথ্যই ইংরেজিতে আছে। অতএব আপনার ইপাসপোর্টেও সব তথ্য ইংরেজিতে আসবে।  ****ই-পাসপোর্টে  Pending SB Police Clearance  বলতে কি বুঝায় জেনে নিন**** এছাড়া নতুন ePassport করতে গেলেও আপনি সব তথ্য ইংরেজিতেই পূরণ করবেন। হতে পারে NID কার্ডে বাংলায় লিখা আছে। সেটা কোনো সমস্যা হয়। তবে হ্যা অবশ্যই নির্ভুল ভাবে, ১০০% নির্ভুল ভাবে আপনি নিজেই নিজের বাবা মায়ের নাম ইংরেজিতে সঠিক ভাবে টাইপ করুন। অন্যথায় পরবর্তীতে এসব বানান ঠিক করার জন্য আপনাকে ঝামেলা পোহাতে হবে।  ধন্যবাদ ব্লগ টি পড়ার জন্য। আরো প্রশ্ন থাকলে  ফেইসবুক পেইজে  জানাবেন। 

ই-পাসপোর্টে Pending SB Police Clearance বলতে কি বুঝায়?

 ই-পাসপোর্টে Pending SB Police Clearance বলতে কি বুঝায়? অনেক গুলো নিরাপত্তা স্তর পার করে আপনার ই-পাসপোর্ট টি তৈরি হয়। এই ই-পাসপোর্ট উন্নত বিশ্বের একটি পাসপোর্ট। Pending SB Police Clearance এই স্ট্যাটাস এর মানে হল পাসপোর্ট টির পুলিশ ভেরিফিকেশন রিপোর্ট পাসপোর্ট অফিসে আসে নি। এমন অবস্থায় অপেক্ষা করুন পুলিশের ফোনের জন্য। হতে পারে আপনার পুলিশ ভেরিফিকেশন হয় নি। অথবা অনেক দেরি হয়ে গেলে SB office এ যোগাযোগ করুন। এমন হতে পারে আপনার রিপোর্ট টি SB office থেকে পাসপোর্ট অফিসে পাঠানো হয় নি। আপনার আরো কোনো প্রশ্ন থাকলে নিচের কমেন্টে জানাবেন। এটি একটি আন অফিসিয়াল ব্লগিং ওয়েবসাইট, সাধারণ মানুষকে যতটুকু সম্ভব তথ্য দিয়ে হেল্প করার জন্য। এখানে কোনো পাসপোর্ট বানানোর সহযোগিতা পাওয়া যায় না। আপনাদের সহযোগিতার জন্য ধন্যবাদ।